উদ্যোক্তাদের গল্প

দেশীয় ঐতিহ্যকে ঘিরেই স্বাবলম্বী হওয়ার স্বপ্ন দেখছেন স্বর্ণা

চাঁদপুরের মেয়ে শারমিন গাজী স্বর্ণা, তবে বাবার চাকরি সূত্রে জন্ম শ্রীমঙ্গল আর বেড়ে ওঠা থেকে শুরু করে এস. এস. সি. পর্যন্ত কেটেছে কুলাউড়াতে। তবে পড়াশোনার সুবাদে বর্তমানে ঢাকাতেই থাকেন। চাঁদপুর সরকারি কলেজের ব্যবস্থাপনা বিভাগ হতে স্নাতক সম্পন্ন করে বর্তমানে তিনি বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অব প্রফেশনালসে ব্যবসায় প্রশাসন অনুষদে স্নাতকোত্তরে অধ্যয়নরত৷ পরিবারের উৎসাহে স্বাবলম্বী হওয়ার আশায় গড়ে তুলেছেন অনলাইন ভিত্তিক একটি বিজনেস প্লাটফর্ম। প্রজন্ম ২৪ কে তিনি তার উদ্যোক্তা হওয়ার গল্প পাঠিয়েছেন।

স্বর্ণা বলেন, চা বাগানের পরিবেশ আমাদের বাইরের পরিবেশ থেকে পুরো আলাদা তাই কলেজ জীবনে কারো সাথে বন্ধুত্বটা গড়ে ওঠেনি। সিলেটের ভাষা বলার কারনে অনেকে কথা ও বলত না তখন।

এইচএসসি এর পর ন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি তে ভর্তি হলাম। তখন পাবলিক ইউনিভার্সিটি সম্পর্কে আমি ও আমার পরিবার কিছুই জানতাম না। পরে যখন সবাই বলত ন্যাশনাল এ পড়ে কি হবে? কিছুই করতে পারবা না। তখন খুব মন খারাপ হত। অনেকবার নিজে কিছু করব ভেবেও করা হয়নি। কেউ সাপোর্ট করত না। আর যেহেতু কোনো বান্ধবী ছিলনা তাই কাউকে পাশে পাইনি।

প্রাইভেট জবের প্রতি একটা ফ্যাসিনেশন ছিল। আট মাস জব করেছি কিন্তু ভাল লাগেনি। তবে আমার পরিবার আমাকে অনেক সাপোর্ট করত বিজনেস এর ব্যাপারে। যখন এম বি এ তে ভর্তি হলাম তখন ও দেখলাম সেই তো জব এর চিন্তাই করতে হচ্ছে তাহলে আমার আর নিজে কিছু করা হবেনা।

পেজ খুললাম কাউকে না জানিয়ে কসমেটিকস বিজনেসের জন্য। সেটাও পারলাম না কারণ আমি নিজেই তো সাজগোজ করিনা আমার কাস্টমার কে আমি ভালো কিভাবে সাজেস্ট করব। পরে দেখলাম আমিতো চা সম্পর্কে ভাল জানি। মনিপুরী দের কাছেই থাকি তাই ওদের পোশাক সম্পর্কে আমার ধারণা ভাল। তাই সেখান থেকেই শুরু করলাম।

আমার পরিবার আমাকে অনেক সাহস জুগিয়েছে এক্ষেত্রে। কিন্তু সেই যে বন্ধু বান্ধব তারা খোঁচা মারার জন্য এগিয়ে এসেছে। একজন তো একদিন বলে বসল, “কি কর এখন? ও অনলাইনে কাপড় বেচো? বাদ দাও এগুলা। ডাটা এন্ট্রির কাজ করবা? ” অন্যরা বলে- স্যাম্পল দাও টেস্ট করি কেমন? এসে বলে দোস্ত শাড়ি গিফট কর। তোর কাছে এত দাম কেন? একটা বার ভাবেনা যে আমি কষ্ট করে আমার প্রোডাক্ট সোর্স খুঁজে নিয়েছি। অনেক সময় খরচ করছি, টাকা ইনভেস্ট করছি।

আব্বুর চাকরি শেষ হলে আমাদের পরিবারকে সিলেট ছাড়তে হবে এটা মানা খুব কষ্টদায়ক আমার জন্য তাই ভাবছি সিলেটের ঐতিহ্যের মাধ্যমে নিজেকে ধরে রাখব। সিলেটের ঐতিহ্যবাহী মনিপুরী পোশাক এবং চা পাতা নিয়ে কাজ করব এবং সবার কাছে সিলেটের ঐতিহ্য পৌঁছে দিব।

শারমিন গাজী স্বর্ণা

স্বত্বাধিকারী,

সুশ্রী – Sushree

সম্পর্কিত নিউজ