রাজনীতিসারাদেশ

ইসলাম নিয়ে কটূক্তি, ছাত্র অধিকার পরিষদের নেত্রীকে বহিষ্কারের দাবি

ইসলাম ধর্ম নিয়ে কটূক্তির অভিযোগ উঠেছে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় শাখা বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদের এক নেত্রীর বিরুদ্ধে। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে তার বিভিন্ন ফেসবুক পোস্ট ও কমেন্ট ভাইরাল হওয়ার পর তার বহিষ্কার দাবি করে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন শিক্ষার্থীরা।

অভিযুক্ত তিথী সরকার জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষের প্রাণিবিদ্যা বিভাগের শিক্ষার্থী এবং শাখা বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদের দপ্তর সম্পাদক। সে একাধারে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় শাখা বিশ্ব হিন্দু সংগ্রাম পরিষদেরও আহ্বায়ক।

অভিযোগ রয়েছে, তিথী সরকার দীর্ঘদিন ধরে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকের বিভিন্ন পোস্ট ও কমেন্টের মাধ্যমে ইসলাম ধর্মের অনুসারীদের ধর্মানুভূতিতে আঘাত করে মন্তব্য করে আসছিলেন।

বিথীর করা এসব পোস্ট ও কমেন্টের স্ক্রিনশর্ট বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন গ্রুপে ছড়িয়ে পড়লে সামাজিকমাধ্যমে সমালোচনার ঝড় উঠে। অনেকে তিথী সরকার ছাত্র অধিকার পরিষদে যুক্ত থাকার বিষয়ে সংগঠনটির নিন্দা জানিয়েছে। আবার অনেকে তাকে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্থায়ী বহিস্কারের দাবি জানান।

তিথী সরকারের এ সকল কর্মকান্ড সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ার কিছুক্ষণের মধ্যেই তাকে সংগঠন থেকে সাময়িক বহিষ্কার করা হয়। একইসঙ্গে তাকে কেন স্থায়ী ভাবে বহিষ্কার করা হবে না জানতে চেয়ে সাতদিনের মধ্যে কারণ দর্শানোর জন্য বলা হয়েছে।

এ ব্যাপারে সংগঠনটির বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সাধারণ সম্পাদক আবু বকর খান গণমাধ্যমকে বলেন, আমরা কিছুদিন ধরেই বিষয়গুলো লক্ষ্য করেছি। অভিযোগ পাওয়ার পরে আমরা তাকে কয়েকবার বোঝানোর চেষ্টা করেও ব্যর্থ হয়েছি। পরে আমরা তাকে বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত নিয়েছি।

সাবির্ক বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর মোস্তফা কামাল বলেন, ওই শিক্ষার্থীর বেশ কয়েকটা স্ক্রিনশর্ট আমি পেয়েছি। সেগুলো পর্যালোচনা করছি। মঙ্গলবার বিশ্ববিদ্যালয় খুললে আমরা আনুষ্ঠানিক ভাবে ব্যবস্থা নেবো।

সম্পর্কিত নিউজ